www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

পুরুষ যেমন মানুষ নারীও তেমন মানুষ প্রাকৃতিক কারণেই শুধু শারীরিক গঠন আলাদা।

কবি, লেখক নারীকে নিয়ে অসংখ্য লেখা লিখেছেন। এর অধিকাংশ শিল্পমান অনেক উপরে যা আমার মত নগণ্য লোক বিচার করার ক্ষমতা রাখে না। কিন্তু “নাতীন বরই খা, বরই খা”এবং “বুকটা পাটয়া যায় পাটয়া যায়”। এইসব কথা মোটেও শিল্প সম্মত নয়, এতে আছে অশালীন ভাব। এই কুরুচিপূর্ণ কথায় নারী পুরুষ উভয় শিল্পী কণ্ঠ মিলিয়েছেন এবং আমরা এইসব গান শুনে তাদেরকে বাড়ি গাড়ির মালিক বানিয়েছি। ভিতরে “কাটা লাগা” মনোভাব নিয়ে নারী দিবসে হুমড়ি খেয়ে পড়ি নিজেকে সাধু করতে। ফেসবুক, টুইটার এবং বগ্লে নারীর পক্ষে এত লেখা আসে যে সেদিন অন্য কোনো লেখা চোখেই পড়ে না ।

নারী দিবসে এত লেখা, এত কবিতা, এত সম্মান, এত শ্রদ্ধা। তারপরেও নারী শারীরিক, মানসিক সব যন্ত্রণাই পায় কেনো! আসলে নারী দিবসে সবাই মুখোশ পরে ভদ্রতার তবে ভদ্র করা দরকার চোখ, ভদ্র করা দরকার মন। নিজের ঘর হতে সেই ভদ্রতা শুরু করা দরকার, নিজের ঘর হতে সেই ভদ্রতা শিখা দরকার। নারী দিবসের দিন চট্টগ্রাম হাটহাজারীর এক ছাত্র নেতা ও কয়েকজন পুলিশের বিরূদ্ধে একজন নারী মামলা করতে বাধ্য হয়েছে। কারণ নেতা ও পুলিশ মিলে উনার দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ভোগ করে ইয়াবা ব্যবসায়ী বানিয়ে জেলে পাঠিয়েছে। তাই বলবো প্রিয় নারী পা ফেলতে এবং মানুষ চিনতে খুব সাবধান।

যেমন অশিক্ষিত ও জালিম বর্বর ওৎপেতে আছে ছোবল মারার জন্য তেমনি শিক্ষিত সমাজও আছে ওৎপেতে এরা সবাই সমাজের দুষ্ট কীট। সবাই এক চেহারার মানুষ, চিনতে ভুল করলে জীবন শেষ, হোক সে বাবা, চাচা, ভাই, সন্তান ও স্বামী কিংবা পাড়া- প্রতিবেশী। হোক সে দরদি নেতা, জনপ্রতিনিধি, মোল্লা-মৌলভী, ওস্তাদ এবং শিক্ষিক, হোক সে আইনের লোক কিংবা আইনের পোশাক পরা। মনে রাখা দরকার নিজের এবং শিশু সন্তানের ইজ্জত আব্রু আসমানে রেখে চলার দিন শেষ।
নারীর প্রতি সহযোগী মনোভাব পোষণ করে সহাবস্থা সৃষ্টি করি, সময় এসেছে সেই চ্যালেঞ্জ নেওয়ার। নারীর ন্যায্য অধিকার দেওয়ার সাথে সাথে ন্যায্য সম্মান দেওয়ার নূন্যতম চেষ্টা করি। নিপাত যাক মতলবাজ ও মুখোশ পরা নারীবাদ।
বিষয়শ্রেণী: সমসাময়িক
ব্লগটি ৯৫ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ১০/০৩/২০২১

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast