www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

চোখ উঠা

চোখ আমাদের অমূল্য সম্পদ। চোখ নিয়ে হেলাফেলা  বা অসাবধানতা  বয়ে আনতে পারে সারা জীবনের দূঃখ। তাই চোখের যত্ন নেয়া সচেতন নাগরিক হিসাবে আমাদের একান্ত কর্তব্য। চোখ উঠা রোগকে চিকিৎসাশাস্ত্রে কনজাংটিভাইটিস  বা রেড আই বলে।

কারণ: #ভাইরাস#ব্যাকটেরিয়া#অ্যালার্জি#কেমিক্যাল#অন্যান্য রোগের কারণে হতে পারে।

কিভাবে ছড়ায়: এটা এক ধরনের ছোঁয়াচে রোগ। মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমিত হয়। আক্রান্ত ব্যক্তির ধরা বস্তু, হাঁচি-কাশি ও পানির মাধ্যমেও রোগটি ছড়াতে পারে।

লক্ষণ: #চোখ লাল হওয়া #চোখের পাতা ফুলে যাওয়া #চোখে জ্বালা পোড়া করা #চোখ দিয়ে পানি পড়া #আলোতে অস্তস্তি লাগা #চোখে ঝাপসা দেখা #চোখের কোণে ময়লা জমা।

কি করতে হবে: #তাৎক্ষণিক চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন। # অন্যদের ব্যবহৃত চোখের প্রসাধনী এবং চোখের  ড্রপ পরিহার করুন।#অন্যান্যদের রুমাল, টাওয়েল এবং মুখ ধোয়ার কাপড় ব্যবহার করবেন না। #রোগাক্রান্ত হলে সে ক্ষেত্রে নিজের চোখ র্স্পশ করে অন্যদেরকে সেই হাত দিয়ে ছুবেন না, কেননা এ রোগ সংক্রমণযোগ্য। #হাত  কিছুক্ষণ পর পর ভালোমতো ধুয়ে ফেলুন। #যে সব কারণে বিশেষত এলার্জিক কোনো বস্তু, কেমিক্যাল কিংবা পরিবেশ দ্বারা চোখ উঠে সে সব বিষয় থেকে দূরে থাকতে হবে। যেমন:- ধূলাবালি. আগুন-আলো-রোদে কম যাওয়া, ময়লা-আবর্জনাযুক্ত স্যাঁতস্যাঁতে জায়গায় না যাওয়া, পুকুর বা নদী-নালা গোসল না করা, টিভি না দেখা ইত্যাদি। # চোখে সব সময় কালো চশমা ব্যবহার করা । #চক্ষু বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী সর্ম্পূণ বিশ্রাম নেয়া।
বিষয়শ্রেণী: অন্যান্য
ব্লগটি ৯২৯ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ২৬/১০/২০১৪

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

  • সুজন ০৩/১১/২০১৪
    বেশ
  • একনিষ্ঠ অনুগত ২৬/১০/২০১৪
    সুন্দর পোস্ট।
 
Quantcast