www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

ধর্ম্ম অধর্ম্ম

ধর্ম্ম,অধর্ম্ম--
--
**
"আমি জলের কাছে প্রশ্ন করি,হারিয়ে যাও কেন? জল বলে আমার স্বভাব এইতো।"
ধর্ম্মঃ ধর মিতি মিত যাহাতে।
ধরার জন্য,ধারণ করে রক্ষা করার জন্য বিশেষ প্রকরণের বিশেষ রীতিনীতি থাকে যার মাঝে।
মন্ ধারিত যাহাতে,যে কর্ম্ম অস্তিত্বের শরীরসাধন করে।
কর্ম্মই ধর্ম্ম,ধর্ম্মই কর্ম্ম।
ধর্ম্ম কথাটির অর্থ এতই গভীর ও ব্যাপক যে, বস্তুর স্বভাব থেকে শুরু করে জীবধর্ম্ম,মানবধর্ম্ম ইত্যাদি পেরিয়ে সমাজধর্ম্ম পর্যন্ত প্রসারিত বিরাট এলাকাকে বোঝাতে সক্ষম।
ধর্ম্ম বানানটিকে ধর্ম লিখলে ধর্ম্মের অন্তর্নিহিত যে অর্থ তা প্রকাশ পাবে না।
ধর্ম্ম তে ধরার জন্য বিশেষ প্রক্রিয়ার ( ক্রিয়া -কৌশলাদির)একটি বিশেষ এলাকা চিহ্নিত হয়ে যায়।
কৃষকের ধর্ম্ম কৃষিকাজ করে শষ্য উৎপাদন করা,যখন তিনি এটা করে খাদ্যরূপে উপস্থিত করেন তখন তার ধর্ম্ম রক্ষা হলো বলা যায়।ধরবার যত প্রক্রিয়া আছে তার মধ্য থেকে কৃষক কেবল শষ্য-উৎপাদন প্রক্রিয়াকেই ধরে নেন এবং তা বাস্তবায়িত করেন।
কৃষকের এই আচরণে ধর-এর মিতি মিত আছে।
যে স্থানে,যে কর্ম্মে,যে আচরণে এই ধর মিতি মিত আছে তার সবই ধর্ম্ম।
সেই হিসেবে সমাজকে ধরে রাখে যে বিশেষ প্রকারের রীতিনীতি,ক্রিয়াকলাপ,আচার-অনুষ্ঠান তার সুনির্দিষ্ট এলাকাকে সমাজের ধর্ম্ম বলে।
ধর মিতি হয় বিশেষ প্রক্রিয়ায় এবং তাকে ধৃ- মিতি বলে এবং ধৃ- মিতি মিত হয় বিশেষ এলাকায়।
ধর্ম্ম এর দুইটি বিশেষ দিক রয়েছে- ১।অন্তর্দেশীয় ২। বহির্দেশীয়।
অর্থাৎ ঘরের ধর্ম্ম এবং বাইরের ধর্ম্ম।
শরীরের ধর্ম্ম পালন না করলে যেমন শরীর ক্ষয় হয় তেমনি সমাজের ধর্ম্ম পালন না হলে সমাজের ক্ষয় হয়।
যে কোনও বস্তু তার নিজস্ব ধর্ম্ম পালন করে চলে।শিক্ষক শিক্ষকের ধর্ম্ম পালন করেন,ডাক্তার তার ধর্ম্ম পালন করেন,এ না হলে তার অস্তিত্ব বিলোপ হবে।
**
ধর্ম্ম বানানে দুটো ম কেন?
ধর্ম্ম,মর্ম্ম,কর্ম্ম এরূপ বানানগুলোতে দুটো ম এর প্রয়োজন।
যেমন ধর্ম্ম বানানে ধর্ ক্রিয়ার সঙ্গে মন্ এর বা মিত এর যোগসাধনে মাঝে একটি ম্ এর আগম ঘটে,নইলে ক্রিয়াদুটি আগুপিছু হয়ে যায়।।এই পরিস্থিতি হয় তখন যখন পূর্ব্বতন ক্রিয়াটি আবর্ত্তন(ঋ) মূলক হয়।
শুধু ধর্ম লিখলে হয় - ধর্ মিত যাহাতে অর্থাৎ ধরবার বিশেষ এলাকা হয়ে যায়,এখানে ধরবার বিশেষ প্রক্রিয়াটি আর থাকে না।ফলে শব্দের অর্থ পরিবর্তন হয়ে যায়।
যদিও প্রচলিত বানানরীতিতে এখন ধর্ম্ম কে ধর্ম লেখা হয়।
**
অধর্ম্মঃনেই ধর্ম্ম যাহাতে।
চাষী ধান ফলান,তাঁতি কাপড় বুনেন।
যে বিনিময়জীবি তাঁতির কাপড় চাষীকে দেন আর চাষীর ধান তাঁতিকে দেন কিন্তু নিজে কিছু করেন না,ক্রিয়াভিত্তিক ভাষায় বলা হয়েছে তার ধর্ম্ম নাই।
শিক্ষক পড়ান এভাবে তিনি তার সামাজিক ধর্ম্ম রক্ষা করেন,যিনি এটা করবেন না তিনি অধর্ম্মের কাজ করলেন।
এভাবে প্রতিটি ক্ষেত্রেই যে যার ধর্ম্ম পালন করলেন না,তবে তা অধর্ম্মের কাজ হবে।
---কৃতজ্ঞতাঃ বঙ্গীয় শব্দার্থকোষ।
২১/০৬/২০১৯
বিষয়শ্রেণী: প্রবন্ধ
ব্লগটি ৬৮ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ২১/০৬/২০১৯

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast