www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

সবুজ ধারায় সুখী হও মন

কোন সে শিল্পী নিরুদ্বেগ শান্ত মনে তার সৃজনময় হাত দুখানি দিয়ে শৃঙ্খলাভরে সহিষ্ণু পৃথিবীর প্রাণের কল্যাণ আলোখানি প্রজ্জ্বলিত করেছে? আগুনে আগুনে মোড়া বসুন্ধরার উত্তাপ নির্মল শীতল সান্ত্বনা কিভাবে পেল? সাঁঝ সকাল প্রাণের মাঝে এই অলঙ্ঘ্য গতির পরিমাপ কে ঠিক করে দিল তাকে? এই মহাজিজ্ঞাসার উত্তর খুঁজি না, বুঝি না সেই জ্ঞান বিজ্ঞানের অনেক গল্প। ঘুম ভেঙে দেখেছি ধবল আকাশে অনেক আলো, সবুজ শাখা, পবিত্র জল, নির্বিরোধী পাখপাখালি আর স্বচ্ছল হৃদয় মানবের কোলাহল পৃথিবীর পথে। প্রীতি ও প্রেমের এক শুভ সংসার। অমায়িক জলবায়ুর কল্যাণে প্রকৃতি পেয়েছে এক শৃঙ্খলিত সমাজ সকলের জন্য। সুবর্ণ পরিবেশ বিকীর্ণ করেছে শক্তি জ্ঞান শান্তি ও নিখুঁত মঙ্গল অনুভূতির ক্রমাগত আলো। দূরীভূত হয়েছে অস্থির বিচিত্র ক্লান্তি।

দৃশ্যের পরে দৃশ্য সবুজের ফাঁকে মনের পথ্যি চিরদিন। পাখিদের গান গাছের দীর্ঘ ছায়ায় সূর্যদয় থেকে সূর্যাস্ত.. তৃপ্তি কানের। জীবনের সব শ্রান্তি হারিয়ে যায় মাঠভরা ধান, সাঁঝের নদীঘাট, রূপসী বনস্থলীর ঐশ্বর্য সবুজের আনাচে কানাচে। পরিবেশের স্পর্শ আবেগ চন্দনসম সুগন্ধিত জীবনের জন্য। শতাব্দী হতে শতাব্দী যুগ হতে যুগ মনোহর ধরনী শ্রান্তিহীন দিব্য পরশ দিয়ে চলেছে ভালোবেসে। মমতা মাধুরীর প্রশান্ত শিশিরকণা ঝরিয়েছে মাতা হয়ে আবহমানকাল। জীবনোৎসবে মনোনিবেশ করতে পেরেছে মানব মাটির কোলে। একটি পূরনো বৃক্ষের সহমর্মিতায় আছে পিতৃসম প্রবীণ বিশুদ্ধ ছায়া। রৌদ্রসাগরে সূর্যকিরনে ক্লান্ত হলে অফুরন্ত করুন হাওয়া জানায় প্রাকৃতিক আবেগ। দূর্দান্ত আবেশে আচ্ছন্ন লাগে। সমস্ত গুমোট মুহূর্তে মহাশূন্যে। বৃক্ষবাহিনীর হাতছানিতে আষাঢ় আকাশে উদ্দাম মেঘের চাষ। বৃষ্টি হল শস্যকনার অঝোর ধারা। রঙিন বর্ষা জাগে একঝাঁক মনোহরা মেঘের রসদ নিয়ে। জলধারায় গানের অনেক সুর। অলস আহ্লাদে আমাদের চেতনা।

খিলখিলিয়ে লগন যায় শরৎ হেমন্ত। নীল আকাশের নীচে পৃথিবীর সকল সকাল। সবুজের অভাব হবে না কোথাও সৌন্দর্যের ব্যাখ্যা বিশ্লেষণে। পাটালীগুড়ের সুস্বাদ নিয়ে হাজির হয় বৃক্ষপত্র ঝরা শীত। উঠোন জুড়ে ধূসর কুয়াশার আচ্ছন্নতায় টুপটাপ শিশিরের উল্লাস। হাঁটু গেড়ে বসে আগুন পোহানো সরল মানুষের ভিড়ে।

আপন পর ভোলা বসন্ত উদাস হৃদয় সঙ্গীতমুখর কোকিলের তানে ।অতিথি পলাশকলি আগুন গায়ে হাসে ফাগুন হাসি।

প্রকৃতির এই বৈচিত্রের ষোলকলা সম্পূর্ন করেছে পৃথিবীর বন। অমর বৃক্ষ ধরিত্রীর আকাঙ্ক্ষার পিপাসা মেটায়, তৃপ্ত হয় জীবনকূল। রূপময় আনন্দে দুঃখকে অতিক্রম করার সুখ এমন করে আর কে দিতে পারে। সহজিয়া গুনে হৃদয় সুস্থ রয়।

সবুজ ফলিয়ে যাই তাই গোলার্ধে গোলার্ধে। গৈরিক প্রকৃতি চিরদিন বিজয়ী আলো জ্বালবে ভয়াবহ অন্ধকারে আমার বিশ্বাস। উদ্দীপ্ত প্রানীজগৎ স্বচ্ছ সজীবতার অনন্ত অভিযানে ধ্বনিত করুক এই অনুরাগ স্তুতি... পরিবেশ চাই প্রতিদিন। পৃথিবীর পারে এই যে সুবিন্যাস্ত সমারোহ, সবই আমার জন্য।
বিষয়শ্রেণী: অন্যান্য
ব্লগটি ৫৮ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ১১/০৭/২০১৮

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

  • অসাধারন সুন্দর লিখেছেন কবি।
    অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও ভালবাসা জানাই।
    ভাল থাকুন। পাশে থাকুন।।
    • অলকানন্দা দে ১১/০৭/২০১৮
      আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাই বন্ধুবর। কুশল প্রার্থনা করি। সঙ্গে থাকবেন।
 
Quantcast