www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

মেয়ে ও মায়া মাদক ও রাষ্ট্র I

মেয়ে ও মায়া, মাদক ও রাষ্ট্র।
৫৬তম পর্ব।

খালামনি আপনাকে ধন্যবাদটা পৃথিবীর উপরে নীল আকাশের মত বিশাল করে দিলাম। আপনি আর আম্মু আমাকে সত্যিকার ভালোবাসে আর আপুটা একটু একটু কিন্তু আব্বু একটুও নয়। আম্মুর কাছে যেতে পারি না আব্বুর জন্য তাই আপনার কাছে ছুটে আসি, মনে কষ্ট লাগলে ক্ষমা করে দিবেন। আসলে কেমন করে যে মেয়েটার প্রেমে পড়ে গেলাম আবার গোপনে বিয়ে করলাম, কিন্তু ধরে রাখতে পারলাম না। মেয়েটা কষ্ট নিয়ে না পাওয়ার হাহাকার দেখতে দেখতে ইহজগত ত্যাগ করলো। খুব কষ্ট হয় শিউলীর জন্য, তার মা-বাবার জন্য। ধনী গরিব সবার কাছে সন্তান হলো সাত রাজার ধন। আপনি আম্মু যেমন আমাকে পরম মমতা বিলীয়ে দিতে কোন কার্পণ্য করেন না ঠিক তেমনি শিউলীর মা-বাবাও খালা মনি।

হ্যালো, আসসামুলাইকুম। কেমন আছেন?
ওয়ালাইকুম সালাম। জ্বি, ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন।
ভালো আছি। আমি আগামীকাল সকালে চলে যাবো।আচ্ছা ঠিক আছে, আল্লাহ যেন সহায় থাকে। আবার সময় সুযোগ করে আমাদের দেখতে আসবেন বাবা। ঠিক আছে চেষ্টা করবো, আপনারা ভালো থাকবেন। জীবন, মরণ আর বাস্তবতা কত কাছাকাছি যেন একই বৃত্তে বন্দী আর এই সবের সাথে আমরা হাড়ুড়ু খেলেই বেঁচে থাকি। প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্টি হওয়া ভালোবাসা আমি ধরে রাখতে পারি নাই। শিউলী মারা গিয়েছে এক এলাকায় মাটি দেওয়া হয়েছে তার নিজের এলাকায় আর আমি থাকবো আরেক জায়গায়। যদি কখনো মন খারাপ হয় শিউলীর কবর দেখতে ইচ্ছে করে পারবো না সময় সুযোগের অভাবে। ইস! জীবিতকালে যদি তাকে আরেকটু অর্থনৈতিক স্বাধীনতা দিতে পারতাম তাহলে বিবাহিত জীবনের সুখ আরো গভীরভাবে উপলব্ধি করতে পারতো। এখন অযত্নে অবহেলায় পড়ে থাকবে বিলীন হওয়া দেহের কবরটা। অবিনশ্বর আত্মা স্বগীয় সুখে যেন সুখী হয় এই চাওয়া রেখে গেলাম তোমার জন্য, হয়তো দেখা হবে কোন একদিন নীল আকাশে।

হ্যালো সুজন, কেমন আছিস?
ভালো আছি, তুই কোথায় এখন, দেখা করিস।
আমি চলে এসেছি, ঠিক আছে দেখা করবো।
কি খরব নাহিদ মিয়া, কেমন আছো?
আসসালামুলাইকুম চাচা, আমি ভালো আছি, আপনি কেমন আছেন।
ওয়ালাইকুম সালাম। এবার তাহলে কাজকর্মে মন দাও। ভালো করে পার্টির কাজ করো সামনে সব কমিটি নতুন করে হবে, দেখি তোমাকে কোন গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া যায় কিনা। অত্যন্ত সাবধানে থেকে কাজ করবে আমার প্রতিপক্ষ ক্ষতি করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে।
(ম্লান হেসে নাহিদ) চাচা আল্লাহের রহমতে আপনাকে কেউ কিছু করতে পারবে না আমি আছি আপনার পাশে। করতে হলে আমাকে মেরে তারপর করতে হবে। আপনার দিকে বড় চোখ তাকানো সেই চোখ কারো নাই, আপনি মনে সাহস রাখেন।
আমি তোমাদের কয়েকজনের কারণে বুক ফুলিয়ে চলার সাহস পাই। কে কি বলে তা নিয়ে আমার মাথা ব্যথা নাই তুমি ঠিক থাকলে হবে। আমি তোমাকেই আমার নীতি আদর্শে গঠতে চাই।
ধন্যবাদ চাচাজান। ঠিক আছে, এখন তাহলে যাই।

হে প্রিয়তমা শিউলী,
যদি পারো ক্ষমা করে দিও। সোবহান মিয়া সমাজের অধিপতি তাই উপরে উঠতে হলে সোবহান মিয়ার সুনজর দরকার। যখন সময় হবে তখন আমি তাকেই কুজনরে ফেলবো ততদিন সয়ে যাই এবং সয়ে যেতেই হবে। রাগ করো না তুমি, তোমার অনুপস্থিতে আমি বড়ই অসহায় তাই শক্তিমান হতেই সোবহান মিয়াই মই। আকাশের একা তারাটার দিকে তাকালে চোখে জল আসে একা নিঃসঙ্গ সেই তারা তুমি। আর সোবহানকে দেখলে ঘৃণা, রাগ, ক্রোধ প্রজ্বলিত হয়ে উঠে তখন চটজলদি আকাশ দেখি সেই নিঃসঙ্গ তারা খুজি। খুব দ্রুত সোবহান মিয়া রাবণ উপাধি পাবে তাই অপেক্ষা, তাই সোবহান মিয়ার ছায়ায় হাঁটা।
(চলবে)।

মেয়ে ও মায়া, মাদক ও রাষ্ট্র।
৫৭তম পর্ব।

কিরে নাহিদ শুশুর বাড়ি গিয়ে একদম চুপ হয়ে থাকলি যে,একবার ফোন পর্যন্ত করিস নাই। এই দিকে আমি একটু ব্যস্ত ছিলাম তাই ফোন দিতে পারি নাই।
এসে সব সামনাসামনি বলবো বলে ফোন করি নাই।আন্টির বাড়ি গেলে আন্টির সাথেই কথা বলে শেষ করতে পারি না দুইজনে এত কথা বলি যে টের পাই না কখন সময় চলে যায়। আর একদিন শিউলীদের বাড়িতে ছিলাম, অনেক লোকজন সাথে ছিলো এবং শুশুর মশাই বসে কথা বললো উনাদের আত্মীয়- স্বজনের সাথে ফোনে কথা বলতে হলো তাই ব্যস্তই ছিলাম বলা যায়।
তোর শুশুর-শাশুড়ী কেমন লোক, কেমন আচার- আচরণ করলো তোর সাথে।
উনারা একশ পারসেন্ট ভালো মানুষ। আসলে আমরা মনে করি গরিব হলে, অভাবী হলে মানুষ আনকালচারহয়। এই কথা পুরো এবং সবার বেলায় সত্য নয়, উনাদের দেখলে বুঝতে পারবি।পুরো বাড়ির পুরো বংশ শিক্ষিত ও ভদ্রলোক, সবাই কে ডেকে আমাকে পরিচয় করে দিয়েছে, সাধ্যমত আপজন ও মান্যগণ্যদের আমার সাথে খাওয়ার খেয়েছে।অথচ তাদের মেয়ে নেই আমি নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করেছি এবং আমার কারণেই হয়তো সে মারা গিয়েছে। উনারা আমার সাথে কেউ কোন প্রকার মন খারাপ করা কথা বলেনি তবে বার বার শিউলীর অভাব অনুভব করে।আমি গিয়ে তাদের অনেক টাকা পয়সা খরচ করে ফেলছি তা যোগাড় করতে কষ্ট হয়ছে উনাদের তাও বুঝা যায়নি। একজন প্রকৃত জামাতা যে সম্মান পায় তাই আমি পেয়েছি।

শিউলী যে একজন ভদ্র পরিবারের মেয়ে সেটা তার আচরণেই বুঝা যেত।
সুজন তার ছোট একটা ভাই পড়াশোনা করে।আত্মীয়-স্বজনের সাহায্য সহযোগিতায় কোনোমতে চলে, কিন্তু দেখলে বুঝা যায় অনেক সুখী ধনবান একটা পরিবার। আর আমরা দুইহাতে টাকা কামাই টাকা খরচ করি তবুও সুখের ঘরে গরিব মশাই।
আসলে আত্ম তৃপ্তিই হলো সুখের বাসা, নাহিদ।
আমার সব পরিচয় দেওয়ার পর বিশ্বাস করলো কিনা বুঝতে পারি নাই, আমি যে শিউলীকে নিয়ে আম্মু-আব্বুর ছিলাম না সেটা হয়তো বুঝতে পেরেছে। কিন্তু আমি যে একটা অবাধ্য সন্তান সেটা বলি নাই, এই কথা বলতে আমার লজ্জা লাগে। আসলে সুজন,শিউলীকে নিয়ে আসা উচিত হয়নি।বাদ দেয় অতীত এখন ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা কর, কি করবে। শিউলীর পরিবারের জন্য কিছু করার চেষ্টা কর, যেমন অর্থনৈতিক সাহায্য করা, তার ভাইটাকে পড়াশোনা করানোর চেষ্টা করা।
আমিও তাই ভাবছি সুজন।
মেয়ের জামাই নয় একজন ছেলের মত এই পরিবারের পাশে থাকবো। তবে এর জন্য আমাকে কিছুটা ত্যাগী হতে হবে।এবং সোবহান মিয়ার সাথে অত্যন্ত সূক্ষ্ম ও তীক্ষ্ণ বুদ্ধি দিয়ে চলতে হবে। প্রতিশোধ নিতে হলে যা করা দরকার সব করবো তবুও সোবহান মিয়াকে ছাড়বোনা।
ভাই রেরাজনীতি অনেক জটিল জিনিস আমি বুঝি না, আমরা দুইজন ভালো বন্ধু এইটাই ভালো।
হাঃহাঃহাঃ।(নাহিদ হাসে সুজনের কথায়)।

আমি তো রাজনীতি করবো না, আমি করবো পলিটিক্স।সোবহান মিয়ার সাথে থাকবো, কাজ করবো কিন্তু মনে থাকবে সোবহান মিয়া শত্রু আমার।সোবহান মিয়া উপরে উঠার মই যেটা দিয়ে আমি আকাশ ধরবো। সোবহান মিয়া এমপি হবে, মন্ত্রী হবে এইটা অবশ্যই তার প্রতিপক্ষে ঘায়েল করে হতে হবে তাই তার দরকার নাহিদের আর উপরে আমিও উঠতে চাই তাই আমার দরকার সোবহান মিয়ার।এখানে নীতি, আদর্শ ও দেশপ্রেমের অভিনয় করা লাগবে। আমি এই সব করতে পারবো না তাই সরাসরি পলিটিক্স করবো সোবহান মিয়ার ইশারায়।অশিক্ষিত বর্বর এক সময়ের মাস্তান সোবহান মিয়া কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে এখন এমপি হতে চায় মন্ত্রী হতে চায়। এখানে জনসেবা, সমাজসেবা কিংবা নামের সাথে হাজ্বি লাগনো হলো চেহারায় মুখোশ পরা এবার বল এখানে দশপ্রেমের কি আছে।দল যখন ক্ষমতায় তখন টাকা রোজগার করাই হলো রাজনীতির একটা অংশ।আর সেটা যেভাবেই হোক শুধু চাই মাথার উপর নিরাপদ একটা ছাতা।

এক সময় সেই বিশ্বস্ত ছাতা সোবহান মিয়া পেয়েছে বলে আজ সে বড় রাজনীতিবিদ। আমি রাজনীতিবিদ হতে চাই না তাই দল ক্ষমতা হারানোর আগেই দেশ ত্যাগ করবো বিদেশে গড়ে তুলবো ব্যবসা বাণিজ্য।
আর যদি অন্য কোন পলিটিক্সে পড়ে তুই মারা যাস।এইটাতো দেশপ্রেমিক নামক ভণ্ডামি হতে বাঁচার সহজ পথ। তোর সাথে যদি কোন ভুল আচরণ করি তুই ক্ষমা করে দিবি এবং আম্মুও ক্ষমা করে দিবে। আর যদি বেঁচে থাকি বিদেশ চলে যেতে পারি কিংবা যেখানেই থাকি তোকে ভুলবো না কখনোই।
(চলবে)।

মেয়ে ও মায়া, মাদক ও রাষ্ট্র ।
৫৮তম পর্ব।

আম্মু কেমন আছো?
তুমি কেমন মৌরি মামনি। আমি ভালো আছি।
আম্মু একটা সুখবর দিবো, এখন মেইলে নিউজটা পেলাম। তোমাকে বলে তারপর দাদীকে বলবো।
কি এমন খবর বলে ফেলো মামনি।
সেই বহুজাতিক কোম্পানির চাকরীটা আমি পেয়ে গেলাম। খবরটা শেষ হলো আম্মু।
আজ আমার আনন্দময় দিন। আর এই আনন্দ ছড়িয়ে পড়ুক আকাশে বাতাসে জানুক মানুষে।
একি আম্মু তুমি কাঁদছো কেন।
এই কান্না আনন্দ অশ্রু, সুখের নেত্রজল । আজ আমি মা হিসাবে সার্থক, ছুড়ে ফেলে যাওয়া মায়েরা শুনে আশান্বিত হবে। মৌরি এক নিঃসঙ্গ মায়ের সন্তান লন্ডন জয় করেছে, সংগ্রামী মায়ের অনুপ্রেরণায়।
মৌরির আব্বুর মত এমন হাজারো আত্মকেন্দ্রিক স্বার্থপর বাবা আছে টাকা-পয়সায় মান-সম্মানে সমাজের উপর তলায় বসবাস কিন্তু মৌরিদের কাছে ঘৃণিত।যেটা সন্তান মুখে প্রকাশ করে না অন্তরে রাখে। আম্মু বাদ দাও এইসব কথা।
তোমার দাদী এবং নানীকে ফোন দিও।
ঠিক আছে, আমি জবে জয়েন্ট করে কোম্পানির সাথে আলাপ করে আপনার ভিসার জন্য আবেদন করবো আর কিছু দিন কষ্ট করে ঢাকায় থাকো আম্মু। যদি শরীর অসুস্থ লাগে তাহলে স্কুল হতে ছুটি নিয়ে কয়েকদিন বাসায় আরামে থাকুন।

না মৌরি,ছুটি নিবো না। একা একা বাসায় থাকতে পারবো না। যাওয়ার আগে পর্যন্ত স্কুলে যাবো, সবার সাথে থাকলে সময় ভালোভাবে কাটবে।
ঠিক আছে আপনার যেমন ভালো লাগে তাই করুণ।নিজের যত্ন নিবে আম্মু, সমযমত খাবার খাবে।
ঠিক আছে মামনি, আল্লাহ হাফেজ।
হ্যালো দাদী। আমি মৌরি বলছি।
আসসামুলাইকুম,কেমন আছেন?
আমি ভালো আছি,তুমি কেমন আছো?
আপনার দোয়ায় আমি ভালো আছি। আগে যে বলেছি আমি চাকরীর জন্য চেষ্টা করতেছি, নিশ্চয় মনে আছে আপনার। সেই চাকরী আমি পেয়েছি, কোম্পানি আমাকে জয়েন্ট করতে ডেকেছে।
আলহামদুল্লিল্লা, শোকর আল্লাহর।
জলি মাকে বলেছো।
জ্বি, বলেছি এখন।
ইস যদি আমরা তিনজন আবার একসাথে থাকতে পারতাম আমি শান্তিতে মরতে পারতাম এবং মরেও আমার আত্মা শান্তি পেতো। তোমাদের ছাড়া আমার অনেক কষ্টে দিন কাটে, মনে হয় মরে গেলেই বাঁচি।

আহ,দাদী কান্না কেন করছো। আমি আর আম্মু জানি আপনি মনে কষ্ট নিয়ে দিন অতিবাহিত করতেছেন। দোয়া করেন আমি যেন আম্মু এবং আপনাকে নিয়ে আসতে চেষ্টা করতে পারি। আবার আমরা একসাথে থাকবো, একসাথে খাবো,এক বিছানায় ঘুমাবো দাদী।
আমি জলি মার হাতে পানি পান করে মরার জন্যই বেঁচে আছিরে বোন। টাকা পয়সা লাগলে বলিও।
আপতত টাকা পয়সা লাগবে না দোয়া করবেন শুধু।আমার কানাডায় থাকা-খাওয়া, সেবা যত্নের কোন সমস্যা হচ্ছে না। তবে সব বাহিরের লোকে করে ঘরের কাজে আয়া এবং সেবা যত্নে সেবিকা। এদের আচরণে কিংবা সেবা যত্নে কোন আন্তরিকতা নেই এরা রোজ টাকার বিনিয়ম ডিউটি করে। যেটা আমার জলি মার ভিতর দেখেছি এখানে আপন পর কারো ভিতর সেই আন্তরিকতা, সেই দয়া-মায়া, সেই দায়িত্বজ্ঞান কোন কিছুই নেই। আমি চাই জলির বুকে মরতে অথচ সে আমার এখন কেউ নয় (কান্নারত)। আহারে দাদী কান্নার কিছুই নেই এইটাই জীবন। মানুষ যা চায় তা খুব কম হয়, এইটাই প্রাকৃতিক রহস্য। আমি এক দেশে, আম্মু এক দেশে আর আব্বু এক দেশে। আমরা মা ও মেয়ের জীবনে আব্বুর কোন প্রভাব নেই এই রকম শত শত আছে। আর এইটা স্বাভাবিকভাবে মেনে নেওয়া জীবনের সৌন্দর্য।

কেমন আছেন ভাবী?
জ্বি ভালো আছি, আপনারা সবাই কেমন আছেন।
সবাই ভালো আছি।
শুনেন, মৌরি লন্ডনে ভালো একটা চাকরী পেয়েছে। শিউলীর আব্বুকে বলবেন আর বাড়ির মুরব্বিদেরও বলতে বলবেন যেন দোয়া করে মৌরির জন্য।
অনেক খুশির খবর, দোয়া করি মামনির জন্য। ভাবী সময় সুযোগ পেলে একবার বাড়ি হতে ঘুরে যাবেন। আপনাদের দেখতে মন চায় কিন্তু সময় পাই না দেখি স্কুল বন্ধ হলে চেষ্টা করবো আসতে।
ঠিক আছে এখন রাখি। আল্লাহ হাফেজ।
জ্বি আচ্ছা।
(চলবে)।

মেয়ে ও মায়া, মাদক ও রাষ্ট্র ।
৫৯তম পর্ব।

চাচা আমি ছোটোখাটো একটা ব্যবসা করতে চাই আর এতে আপনার সাহায্য সহযোগিতা দরকার। কিসের ব্যবসা করবে তুমি। এখন নতুন কমিটি হবে কোন ধরনের ঝামেলায় জড়ানো যাবে না। তাহলে তোমাকে কমিটিতে ভালো কোন পদবি দেওয়া সমস্যা হবে। কমিটি হওয়ার পর যা ইচ্ছা তাই করতে পারবে আমি নিজেই ব্যবসা করার পথ দেখিয়ে দিবো।
কিন্তু আমার যে পকেট খরচ দরকার হচ্ছে চাচা।
তাও আমি ব্যবস্থা করবো আপতত। আমার হোটেলে খাওয়ার খাবে এখানে থাকবে, বাকি খরচও দেখবো। আচ্ছা ঠিক আছে, কয়েক দিনের জন্য আমি ঘুরতে যাবো।
এখন আবার কোথায় যাবে বাবা।
আসলে চাচাজান ভালো লাগতেছে না, কোন কাজে মন বসতেছে না তাই ভাবলাম একটু কক্স বাজার গিয়ে সাগর পাড়ে ঘুরে আসি।
ওহ আচ্ছা যাও তাহলে।
কিন্তু টাকা পয়সাতো নাই, আপনিই আমার ভরসা।
হাঃ হাঃ হাঃ, আমিই ভরসা! ঠিক আছে দেখি তাহলে।ধন্যবাদ চাচাজান।

আসসালামু আলাইকুম, আমি নাহিদ। কেমন আছেন আপনারা?
ওয়া আলাইকুম সালাম, জ্বি বাবা ভালো আছি।
আপনি কেমন আছেন?
জ্বি আমিও ভালো আছি। আমি কিছু দিনের জন্য কক্স বাজার বেড়াতে যাবো তাই ফোন দিয়েছি। হয়তো ফিরতে দশ বার দিন লাগতে পারে আর ওইখানে ব্যস্তও থাকতে পারি ফোন করা সম্ভব নাও হতে পারে। আপনারা ভালো থাকবেন।
আপনিও ভালো থাকবেন। আল্লাহ যেন সহী সালামতে রাখে আপনাকে।
আপনাদের এই নাম্বারে একটা অ্যাকাউন্ট করে নিবেন। বিকাশ, রকেট যে কোন একটা হলেই হবে। আচ্ছা ঠিক আছে বাবা। আমি আপনার শুশুরকে বলবো উনি করে নিবে। কিন্তু হঠাৎ অ্যাকাউন্ট কেন দরকার হলো বাবা।
হাঃ হাঃ এমনি, হয়তো ভবিষ্যতে কখনো দরকারও হতে পারে। তাই করে রাখলে ভালো হবে আম্মা। দেখি আমি আপনাদের জন্য কিছু করতে পারি কিনা।
আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুণ।
দোয়া করবেন।

আমি প্রথমে কয়েকদিন ঢাকা থাকবো তারপর কক্স বাজার এবং রাঙ্গামাটি যাবো। সেখানে বেড়ানো আমার উদ্দেশ্য নয়, আমি যাইতেছি ওইখান হতে ব্যবসা বাণিজ্য করা যায় কিনা দেখার জন্য। সুজন, তোর কাছে কোন কথা গোপন রাখতে চাইতেছি না।
কিন্তু কী ব্যবসা করবি ওইখান হতে।
এইটা এখন বলবো না। আগে সব কিছু ঠিক করি তারপর সব তোকে বিস্তারিতভাবে বুঝিয়ে বলবো।
ঠিক আছে, সব সময় তোর জন্য দোয়া এবং ভালোবাসা। এখন শিউলীও নাই যে তোর জন্য অপেক্ষা করবে আর “মা” সেই জানে না তোর অবস্থান। সুজন এত কঠিন হয়ে কেন কথা বলছিস।
তোকে আজকাল অনেক এলোমেলো মনে হয়। রাজনীতির গভীরে চলে গেলে মানুষ কখনো কখনো অচেনা হয়ে যায়, বৈধ কিংবা অবৈধ পথে টাকার কুমির বনে। তোর ব্যক্তিগত ইচ্ছায় আমি বাঁধা দিবো না তবে অবৈধ কোনো কাজ আমি সমর্থন করবো না তাই আমাকে ভুলে যেতে হবে, ক্ষমা করবি দোস্ত।

ঠিক আছে এখন তাহলে আমি আসি।
আমার কথায় মনে হয় রাগ করলি।
না না সুজন, তুই তোর জায়গায় শতভাগ সঠিক। আসলে আমি ছোটকাল হতে এলোমেলো হয়ে গিয়েছে, আব্বুর কঠিন শাসন আমাকে বেপরো করে তুলেছে অথচ ভালো ছাত্র হয়েও আব্বুর কঠিন নিয়ম আর বকাঝকার কারণে আইএসসি পর আর পড়াশোনা হয়নি, শেষ পর্যন্ত গৃহ ত্যাগ করলাম। তুই একজন ভদ্রলোক শান্তিময় মানুষ তোর নীতি ও সততা কালিমা লেপন হোক আমি কখনো চাই না। আরে থাক থাক আমাকে এত উচুতে উঠানোর দরকার নাই। তবে কোনো দেশ ও সমাজ বিরোধী কাজের সহযোগী আমি হতে চাই না। রাজনীতি করে যারা আমির কুমির হয়েছে তাদের অনেকের চলার পথ অস্বচ্ছ ও ধোয়াশা। এদের আমি ঘৃণা করি নাহিদ I
(চলবে)।
বিষয়শ্রেণী: গল্প
ব্লগটি ১০৫ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ০৮/০২/২০২১

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast