www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

একটা অকবিতা মাধবী চলে তেলে

ভাবছি একটা কবিতা লিখবো কবিতার শিরোনাম হলুদ পাখি , খাতা-কলম নিয়ে কবিতা লিখতে বসলে কাজের বুয়ার চিৎকার তেল নাই চুলা জ্বলে না। চারিদিকে এত তেল অথচ আমার ঘরে তেল নাই, বুয়াকে বলি সরিষার চাষ করে জমিতে বেড়া দিবো ভবিষ্যতে ।

বুয়া আমার হেসে বলে জমিন এখন বেড়া খায়, চুপ করে বসে ভাবি যৌবনকালে তেলবাজ হলে একটা চাকরী পেতাম। তাহলে কুটুমতলার মাধবীকে বিয়ে করতাম, তাতে আমার ভালোবাসা হারাতো না । আর বুয়ার এত তেল নাই, তেল নাই শুনতে হতো না।

সব জায়গায় তেল, খাটে তেল, ঘরে তেল, সমাজে তেল, গ্রামে তেল, ইউনিয়নে তেল, উপজেলায় তেল, জেলায় তেল, ঢাকায় তেল, রাষ্ট্রেও তেল।
তেলে চলে অফিস, আদালত, থানা, কোট-কাচারি। শুধু চলেনি মাধবী, কত তেল দিলাম, কত তোয়াজ করলাম, ধৈর্য্য ধরো চাকরী হবে, বিয়ে হবে, সংসার হবে, সন্তান হবে। তবে সবই হয়েছে মাধবীর তেলি মিয়ার তেলে, কিন্তু আমার হয়নি আদৌ অবধি।

ফয়জুল মহী।
০৮ -১২ -২০২০
বিষয়শ্রেণী: কবিতা
ব্লগটি ৩৬১ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ০৮/১২/২০২০

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

  • সাখাওয়াত হোসেন ১৮/১২/২০২০
    চমৎকার অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ হে সুপ্রিয় কবি।
  • সাখাওয়াত হোসেন ১৭/১২/২০২০
    বর্তমানে তেল দেওয়া একটি শিল্পে পরিনত হয়েছে।
    যে তেল দিতে যত পারদর্শী সে তত সফল।

    চমৎকার ভাবে বাস্তব চিত্র তুলে ধরার জন্য আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ।
  • এস এম শাহনূর ১৫/১২/২০২০
    বাস্তবতা উঠে এসেছে।
    ধন্যবাদ।
  • স বা ই তেল দি তে পা রে না।
  • চমৎকার লেখনী।
  • ভীষণ মুগ্ধতা প্রিয় কবি।
 
Quantcast