www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

বৃদ্ধাশ্রমের চিঠি

চিঠিটা পোস্ট হওয়ার অপেক্ষায় ছিল
মায়ের হাতের লেখা পাওয়া গেছে বিছানায়।
বাবা ক
দেখতে দেখতে সব বদলে যায়
নদীর স্রোতধারা বদলে যায়
মানুষের চলার পথ বদলে যায়
সময়ের হিসেব বদলে যায়
ভালোবাসার হিস্যা বদলে যায়!
কিন্তু কি জানিস?
শুধু মায়ের মনটাই বদলায় না
জন্মের পর থেকে সন্তানের ক্রন্দন ধ্বনি
সন্তানের শৈশবের কৈশোরের যৌবনের স্মৃতি
এতটুকুও মরিচা ধরেনা।
আমার কোন অভিযোগ নেই
মায়েদের কোন অভিযোগ থাকতে নেই
অভিযোগের যোগ বিয়েগের অদৃশ্য ইশারায়
পাছে তোর ক্ষতি হোক সে শংকায় বুক কাঁপে।
মায়ের কাছে সন্তানের সুখটাই পরম চাওয়া
যত দূরে থাক সুখে থাক এই কামনা।
তোর মনে পড়ে আমাদের শান্ত কুটির
একটা ছোট্ট পাখির বাসা যেন
সীম, লাউ, চালকুমড়ো পুরো উঠোন ভরে থাকত
আর ঘরের সাথে বেগুন গাছে ছোট্ট টুনটুনি!
দেখতে দেখতে বড় হয়ে গেলি
বাবার হাত ধরে শহরের নামকড়া স্কুল
তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।
এখন ঘরে বাইরে দুজনেই চাকুরি করিস
ভীষণ ব্যস্ততা তোদের
সময়ও যেন তোদের সাথে পেরে উঠেনা।
হয়ত এটাই জীবন বাবা
হয়ত ব্যস্ততাই জীবনের স্বার্থকতা।
আমি ভালো আছি বাবা
নিয়মমত গোসল, খাওয়া -দাওয়া
মেডিকেল চেকআপ, ধর্ম কর্ম
কেটে যাচ্ছে জীবন।।
মাঝে মাঝে নিজের সুখ দেখে হিংসে হয়
আমি কত নিশ্চিন্তে বসে আছি
ঠিক এই সময় আমার বাবার কোন বিশ্রাম নেই।
আর কি লিখব?
দাদুকে খুব মনে পড়ে
কতদিন দেখিনা
যাক তবুও ভালো থাক তোরা
আমি দূর আকাশের তারার মত
তোদের লুকিয়ে লুকিয়ে দেখেই শান্তি পাই।
শেষ করার আগে একটি কথা বাবা
জীবনে বিশ্রামেরও প্রয়োজন আছে
পাশের মানুষগুলোর সাথে একটু গল্প করারও প্রয়োজন আছে।
একটু সময় করে গল্প করিস
দাদুকে সময় দিস
ওকে সাহসী মানুষের গল্প শোনাস।
ভালো থাকিস বাবা।।
বিষয়শ্রেণী: কবিতা
ব্লগটি ৩৮৫ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ০১/০৫/২০১৮

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast