www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

ভালবাসি তোকে

" আচ্ছা কেন মানুষগুলো এমন হয়ে যায় চেনা যানা মুখগুলো সব অমন হয়ে যায় " আজ মনে হচ্ছে গানের কথাগুলো সত্যি কথা । নুহাশ এমন চেঞ্জ হয়ে যাবে কখন ভাবিনি । আমাদের এত বছেরের বন্ধুত্ব এক নিমিষে শেষ করে দিয়ে চলে গেলো । আজ মন্য হয় আমরা আবার এক হবো । আমার এত দিনের অপেক্ষা সার্থক হবে । আমাকে কল দিয়ে আজ দেখা করতে চেয়েছে । আমি এখন যাব গুল্শান এ ।
নুহাশ : তোকে আজ খুব সুন্দর লাগছে ।
নন্দিনী : থাঙ্ক ইউ ।
নুহাশ : তুই আমার পছন্দের ড্রেস পড়ে এসেছিস ।
নন্দিনী : শুধু তোর জন্য ।
নুহাশ : আমি তোকে ভালবাসি । কিন্তু বলার সাহ্স হয়নি । সরি এতদিন কেন যোগাযোগ ছিলোনা আজ সব বলবো তোকে ।
নন্দিনী : তুই ও আমার পছন্দের ড্রেস পড়ে এসেছিস । আমি ও তোকে ভালবাসি ।
নুহাশ : শুনবি তুই আমি যা তোকে বলতে চাই ?
নন্দিনী : হুম । শুরু না করলে এখানে এখন মাইর খাবি ।
নুহাশ : তোর শুরু হয়ে গেছে পাগলামো চুপ করে বস তোর জন্য আগে কিছু অর্ডার করি । খিদে পেলে আগে ও এমন করতিস এখনও করিস । তোর বর তোকে কিভাবে সামলাবে আল্লাহ্‌ ই জানেন ।
নন্দিনী : তুই খোটা দিস না তো । জানিস ই তো আমি এমন তুই ছাড়া কে বুঝবে বল ।
নুহাশ : বুঝি বলেই তো তোর জন্য ফিরে এসেছি আবার ।
(খাবার অর্ডার হয়ে গেছে ওদের কথা চলছে । নুহাশ কথা বলা শুরু করলো ওরা কল্পনায় চলে গেল চলে গেল ৪ বছর আগে যখন ওরা ইন্টার পড়ছে । ক্লাস ৮ থেকে ওদের বন্ধুত্ব । )
নন্দিনী : কিরে নুহাশ কাল যাবি তো মোনার বিয়ে তে ।
নুহাশ : হুম । যা তো এখন বাসায় যা ।
নন্দিনী :কিছু দিন ধরে দেখছি তুই আমাকে avoid করছিস । কেন রে ?
নুহাশ : বড় হ তখন বুঝবি ।
নন্দিনী : তোর সাথে আমি কথায় পারি না । যা তুই আমার সাথে তুই আর কখন কথা বলবি না । (কথাটা বলতে বলতে কান্নায় ভরে গেলো নন্দিনী এর চোখ । নুহাশ খেয়াল করে ও না বোঝার ভান করলো । )
কানতে কানতে নন্দিনীর জ্বর এসে গেছে । দুই চোখ ফুলে আলু । যার জন্য এত কান্না সেই আর কলেজে আসেনি ।
নুহাশ : বাসায় বসে আছে মন খারাপ, আমি জানি কেন তোর সাথে এমন করছি । তোকে আমি বোঝাতে পারবো না । তোকে এই কলেজে সেভ করতে গেলে আমাকে সরতে হবে । নইলে তোর অনেক বড় বিপদ হয়ে যাবে । আমাদের কলেজের একজন অনেক বড় লিডার আছে আমার সামনে তোকে সেভ রাখতে পারবে না, সে তোকে তার ছোট বোনের মত দেখে । আমার সামনে তোকে সেভ করতে গেলে অন্যান্য পাড়ার লিদারদের সাথে ভাইয়ার গেঞ্জাম হবে ।তাতে আমার ক্ষতি হবে তা তুই সহ্য করতে পারবি না । তুই এখন ও ছোট আছিস রে বড় হসনি । আমি আজ দুবাই চলে যাচ্ছি আমার বাবার কাছে । ৩/৪ বছর পরে ফিরবো তোকে বড্ড ভালবাসি রে হারানোর ভয়ে বলতে পারি নি । জানি তুই ও আমাকে ভালবাসিস । ঠিক একই কারনে বলতে পারিস না । বিদায় ।)
নন্দিনী : ওকে বাসায় সবাই জিগেস করেছে কি হয়েছে কিছু বলে না শুধু চুপ হয়ে গেছে । কারো সাথে কথা বলে না । শুধু কাঁদে আর কাঁদে । বলে নুহাশ তুই হঠাৎ করে চেঞ্জ হয়ে গেছিস । এক রাতে কি এমন হল প্রথমে ১ সপ্তাহ ধরে ignore করলি তার পরে চলে গেলি । কি দোষ করেছিলাম রে শুধু তোকে ভালবেসেছিলাম হারানোর ভয়ে বলতে পারিনি ।
(৩/৪ বছর পরে আবার ফিরে আসে তখন ওদের কথা আবার শুরু হয় । )
নন্দিনী : তুই আমাকে বলতে পারতি । কিন্তু পালালি । জানিস আমি কতটা কষ্ট পেয়েছি । শুধু ভেবেছি আমার জীবন থেকে তুই হারিয়ে গেছিস । তোর ওই দিন কল পেয়ে আমার আত্মায় পানি ফিরে পেল আবার ।
নুহাশ : পাগলি একটা এত ভালবাসিস আমাকে ।
নন্দিনী : অনেক তোর থেকে বেশী বুঝবি না ।
নুহাশ : তোর থেকে বেশী আমি তোকে ভালবাসি । নইলে এভাবে চলে যেতাম
না ।
নন্দিনী : তুই আবার ঝগড়া শুরু করলি । কেঁদেই ফেললো সে ।
নুহাশ : কাঁদিস না মা আমার ।
নন্দিনী : তোকে আমি এবার মারব আবার তুই সে মা বলা শুরু করলি আমি না তোর হবু বউ ।
নুহাশ : হুম টা তো বটে । মা বাবারা মনে হয় আমার বিয়ের ডেট ফেলেছে ।
সরি রে । এই নে কার্ড দেখ ।
নন্দিনী : তোর বউ কে আমি খুন করবো আমাকে ছাড়া তুই অন্য মেয়েকে বিয়ে করবি তোকে দেখাচ্ছি মজা । কার্ড পড়ে নিয়ে, এখানে কনের জায়গায় আমার নাম আসলো কিভাবে সত্যি করে বল ঘটনা কি ?
নুহাশ : আমার মা বাবা আর তোর মা বাবার সাথে অনেক আগে থেকে ভাল সম্পর্ক তুই সেটা জানিস । তারা আমি আসার কিছু দিন আগেই ডেট ফেলে রেখেছে তারা ও গোপন করেছি আমি ও চুপ করে ছিলাম । দেখ আমি তো ঢাকা তে আছি নিজেদের ফ্ল্যাটে একটা ভাল চাকরি পেয়ে যাব খুব শিগগিরি তুই ও তো টিউশন করিস ভাল চলে যাবে আমাদের । তবে তোর বেশী কষ্ট করা লাগবে না তুই বললে আবার চলে যাব দুবাই ভাল হয় তাই না বল ।
নন্দিনী : তুই আবার শুরু করলি না । আমি গেলাম ।
নুহাশ : আহ থাক না আমার পাসে । এই বলে হাত টা টেনে ধরে নিজের কাছে আনলো । ঝগড়া করতে করতে হাত ধরে হাটা শুরু করলো দুইজন দুইজনের কাধে মাথা রেখে । তাদের ভালবাসা এক হয়েছে । বন্ধুত্বের ভালবাসা এমন ই হয় ঝগড়া থেকে শুরু করে মিলে যাওয়া ।
বিষয়শ্রেণী: গল্প
ব্লগটি ৪৭১ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ২২/০৩/২০১৮

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast