www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

Story

ছোট গল্প
একাকিত্ব
আহমেদ কাউছার
ছোট বালক বেশ চঞ্চল । পিতা-মাতার আদরে গড়া । উচ্চ কোন বংশের ছেলে নয় বরং মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান । খেলাধুলার প্রতি বেশ আগ্ৰহ ।
তাই স্কুলে ভর্তি হওয়ার পরেও হাজিরা খাতায় উপস্থিতির সংখ্যা একদিন ও নাই ।তাই এক স্কুল থেকে অন্য স্কুলে ভর্তি । বাবার ক্ষুদ্র আয়ের টাকা সংসার না চলার কারণে মামার বাড়িতে ভর্তি হলো হরিশের। কিন্তু পরিক্ষার সময় হলে নিজ বাড়িতে চলে যায় হরিশ ।মা কে ভুল বলিয়ে আর পরিক্ষা দেয় না হরিশ । আবার ভর্তি হয় অন্য বিদ্যালয়ে । মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান এরা রাস্তায় বসে ভিক্ষা করতে পারে না বরং নিজের কষ্ট গুলো মুহূর্তে মধ্যে হাসিঠাট্টার মাঝে উড়িয়ে দেয় । এবার পড়ালেখার উদ্দেশ্য চলে যায় বাবার ক্ষুদ্র আয়ে চাকরি স্থানে । এখানে এসে ভর্তি হয় , কিন্তু পড়ালেখা তেমন ভালো না থাকায় প্রতিদিন লজ্জা পড়তে হয় হরিশ কে । এইভাবে চলছে ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত ,তারপরে শুরু হয় নতুন এক অধ্যায় ।এবার বেশ পড়ালেখা চলছে । ধীরে ধীরে এগিয়ে আসে মোটামুটি ছাত্রের কাতারে ।১০ শ্রেণীতে রোল চলে আসে ১ ।তার এই পরিবর্তনে অনেকেই অবাক । পড়ালেখা পরিবর্তনের সাথে হারিয়ে যায় বন্ধু । একাকিত্ব চলে যায় জীবন ,হয় কখনো দোকানে বসে একা একা হয়তো কোন পার্কে । কত বিকাল কেটে গেছে একলা , নদীর স্রোতে দিকে তাকিয়ে থাকতাম । সময় আর স্রোত কারোর জন্য অপেক্ষা করে না । পাঁচ,দশ টাকার বাদাম খেয়ে কেটে যেত সেই বিকাল । নদীর কল্লোল শব্দ কানে বেজে ওঠে ।সময় হয়তো কাউকে খুব সুখে রাখে আবার কাউকে কষ্ট । একাকিত্ব থাকতে থাকতে যখন কাউকে সঙ্গী হিসেবে পাই তখন তার সাথে একটু আলোচনা করলে বলে বাঁচাল ।
মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান এরা চাইলে ও দশ বারো জন বন্ধু নিয়ে কোন রেস্টুরেন্টে আড্ডা বসাতে পারে না । কারণ মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষের মুখে থাকে অনেক হাসি ।এরা নিজের কষ্ট গুলো আপন বুকে চাঁপা রাখে ।
হরিশের একাকিত্ব থাকতে থাকতে এখন আর কষ্ট হয় না ।
জীবন এই ভাবে সংগ্রাম করে চলে যেতে হবে আপন ঘরে ।
হয়তো কষ্টের মাঝে বা সুখে ।
বিষয়শ্রেণী: গল্প
ব্লগটি ১৪ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ১৩/০৫/২০২০

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast