www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

তার সাথে দেখা হয়ে গেল

দশটা বছর আগে আমাদের বাসার কাছে প্রতিবেশীতার একটি বন্ধু ছিল তার নাম মুকুল, তার মা‌ ছিল অনেক ভালো ধার্মিক কিন্তু তার বাবা ছিল না

স্কুল ছুটি হলে আমি প্রায় তার সাথে গিয়ে গল্প আড্ডা স্কুলের পড়াশোনার ব্যাপারে কথা বলতাম, সে ছিলো আমার বড় ক্লাসের।

এখান থেকে আমাদের বন্ধুত্ব হয়ে যায় এবং আমি কাউকেই ঘনিষ্ঠ বন্ধু করতামনা এটা ছিল আমার প্রধান লক্ষ্য। সময়ের বন্ধু ছিল সবাই।
একদিন মুকলের আম্মায় এখান থেকে বাড়ি বিক্রি করে চলে গেল তারপর আর দেখা হয়নি মুকুলের সাথে। অনেকদিন পর মুকুলের সাথে হঠাৎ দেখা আমাদের বাসার কাছে ফের,

মুকুলের সাথে কথাও হয় তার ফোন নম্বরটা রাখি আমার ফোনে অনেক কথা হয় কিভাবে থাকি কোথায় থাকে। ইত্যাদি ইত্যাদি ।
মুকুলঃ একদিন হঠাত্ আমাকে মোবাইলে ফোন দিয়ে বসে,

তার সাথে ভাবে কথা বলি সে আমার প্রতি খুব রাগ হতে থাকে কিছুই বুঝতেছি না ।
এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছি রেজাল্ট নিয়া ভর্তি হবার , সিদ্ধান্ত আছি, কি কোথায় ভর্তি হবো।

মুকুল ভাই আমাকে খুব রাগ দেখায জিজ্ঞাসা করে তুমি কাউকে ভালবাসো? আমি বলি হঠাৎ এই প্রশ্ন কেন?

মনে মনে বলি আরে এই কথাটা আমাকে কেউ বলেনি বললাম কিছু বলি না আর আমি এসবের কিছু জানি না

অতপরঃ আমি বললামঃ
মুকুল ভাইকে বললাম কি বলিস ভাই আমি কিছু বুঝতেছিনা কি নামকে সে ? শারমিন ওকে চিনিস বলতো, অভিনয় করিস না প্যাচাল বলিস না আমার সাথে কি কখনো তোই সাথে মিথ্যা বলছি না দেখছি, চালক হয়ে গেছিছ। কবে থেকে
কিভাবে মিথ্যা বলছ।

রাগ হতে থাকে আসলে আমি রিয়েলি কিছুই জানতাম না অবশেষে তাকে আমি বললাম দেখ
মুকুল মিথ্যা বলিনি আমি জানিনা কে সে দেখ চিনি না তোর সাথে আমার কোন কথা নেই যা তোর সাথে কখনো কথা বলবো না কখনো যোগাযোগ করবিনা ফোন দিবি না (শারমিন মুকুলের কাজিন ছিল) সেটি বলছিল মুকুল একবার । , অনেকদিন ধরে আর আমার মনটা ভীষণ খারাপ ছিল কারো মুখের কথায় ইনসাল্ট (হেয়করা) করা একদম ভালো না, মোটেও ঠিক হয়নি, যার এই কথার ব্যাপারে মুকুলের এর সাথে আর আমার সাথে যোগাযোগ না করে কথাগুলি আসলে আস্তে আস্তে সব ভুলে যাই ।

আর তার নাম্বারটা সাথে সাথে আমি ডিলিট( বাদ) করে দেই। আমার এটুকুই মনে আছে তার নাম্বারটা ছিল একটি বাংলালিংক নাম্বার ।
আমি আর কাউকে কিছু বলিওনি আমার এখন পড়াশোনার সময় আমি সব নিয়ে কিছু ভাবতেও চাইনা। আমিঃ

আমি যখন এসএসসি পাস করলাম অমিতা
সরকারি কলেজে ভর্তি হলাম একটি মেয়ের সাথে আমি বাসে করে যাচ্ছিলাম মেয়েটিঃ দেখি একই কলেজ ক্যাম্পাসে আমি ভাবছিলাম অপরিচিত, আমি দেখি অবাক হয়েছি আমাদের ক্যাম্পাসে গিয়ে ডুকে পরে,দুষ্টুমি করে সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলাম , অচিন আরেকটি মেয়ে তাদের মাঝে অতঃপর কে জানি হঠাৎ বটতলা থেকে শারমিন বলে ডাক দিল!

এ জানতে পারলাম আসলে তার নাম শারমিন ছিলো না, এটাই ওর নাম শারমিন,
বাসায় আসলাম ফেসবুকে সার্চ ( খোঁজ) দিলাম শারমিন নামে কাউকে খুঁজে পেলাম না হঠাৎ দুমাস পরে দেখি হয়নি শারমিন নামেরএক টি আইডি দেখি, সাথেই ইনবক্স মেসেঞ্জার নক(সাড়া) দিলাম অতঃপর সেই ইনবক্সটা আমি তার সাথে নক করি সাথে সাথে রিপ্ল হচ্ছে।
আর অপরিচিত ইনবক্স করা পছন্দ না ।

আমার অনেকদিন কথা হল সময় টা কাটিয়ে দিই,
ইনবক্স টার শারমিন এর সাথে ওই বাসে দেখা মেয়েটি ভাবতে শুরু করলাম ।
তারপর আর যোগাযোগ হয়নি কলেজে বেশি যাওয়া হয়নি

দ্বিতীয়( বর্ষ) সেমিস্টারের অনার্স(সম্মান) পরীক্ষায়
পরীক্ষার হলে দেখা , সেই ক্যামপাসের আমি ছিলাম ব্যবস্থাপনা
বাসে দেখা ওই মেয়েটির পরীক্ষার হলে সিটে বসা।
আমি তো রিতিমিতি অবাক হচ্ছি, ভাবছি
তোমার সাথে ইনবক্স কথা হয় চিনতে পারছনা,
বড় পাকনা কথা বলো এখনো ভেজা বিড়াল ।
আমি মনে মনে বলছিলাম।
কথা বলার চেষ্টা করলাম,
সে ছিল একাউন্টিং( হিসাববিজ্ঞান) সেদিন জানতে পারলাম তার নাম হচ্ছে রিমা অতঃপর আমি ভাবলাম এটা হয়তো ,
শারমিন ছিলো না, অচিন বন্ধু হয়েছে কথা হয়েছে সেও বন্ধু আমার,
হয়েছে তো হয়েছেই।


রিমাকে পেয়ে পরবর্তী তার আমি আর তার সাথে যোগাযোগ করলাম না
আমি যাকে খুঁজি তাকে পেয়েছি ওই শারমিন আর কে আমি ভুলে যাই থাকি আমি দূরে ঠেলে দেই ব্লক করে দিই ।

আবার এক নতুন ঘটনা
হঠাৎ আবার দ্বিতীয় সেমিস্টার( বর্ষ) পরীক্ষা দিতে গেলাম তখন দেখি সিটে বসা একটি নাম শারমিন একই পরীক্ষার ব্যস্ততার কারণে ওর দিকে ফিরে তাকাইনি করে আরে ওরই প্রয়োজনে
আমাকে নক করে ডিপার্টমেন্টে( বিভাগ) প্রশ্নটি সমাধানের জন্য, শ আমি কখনো দেখিনি আর কখন ক্লাসের ও এখনো জানতে পারিনি সেই
সেকি সিংগেল(একাকি) নাকি কে সে?? ডিসকভারেড( সন্ধি যুক্ত) জানছি নিপার কাছে
সে আমাদের ডিপার্টমেন্ট ( বিভাগ) একটি মেয়ে।

অতঃপর পরীক্ষায় আমার ভালো বন্ধু হয়ে গেল ওর সাথে রাগ হয় অনেক অভিমান হয় লেখা হয় পরীক্ষার হলেই একবার মুখের দিকে তাকিয়ে আমি মনে মনে বলি খুব ভালো লেগেছে।
এই প্রথম কেউ, দেখতেছি
তার নামটা চারটি পরীক্ষা পর জিজ্ঞাসা করি
সুন্দর করেই বলে, আমি অবাক, সে ছিল
সবচেয়ে সুন্দর । শারমিন


ইনবক্স এর সেই মেয়েটি কি এটা?
আহা, তাহলে খারাপ হবেনা মজার হিস্ট্রি হবে।


ক্রাশ (অবাক ভালো লাগা) হইছে তার সঙ্গে আমি কিছুই জানিনা সে আগে বেরিয়ে ছিল শেষ হয় ( সাড়া) দিই তো নির্ভয়ে,
বলছি পরীক্ষা আছে না শেষ আর দেখা হবে না
সে বলল আছে?

সেই ফেজবুকে ইনবক্স শারমিন টা বুঝি সেটাই হবে , পরীক্ষার লেখা ছাড়া জিজ্ঞাস
করার সুযোগ হয়না,
একদিন ইনবক্স শারমিন টাকে চিনতে পারলাম ঠিকই
তাদের ফ্যামিলির সবাইকে জানি তাকে চিনি না
শারমিন টাকে?

অতঃপর রিমার সাথে ক্লাস (পাঠ বন্ধু) বন্ধু ওর সাথে কোন বন্ধুতর সম্পর্ক তো দূরের কথা বন্ধুত্ব রাখাটা আমার মত কারো ঠিক হবে না ভেবে এমন বাজে অবস্থা দেখে, যোগাযোগ বন্ধ করি।
আমি ব্লক করে দিই
অতঃপর আমি পুনরায় শারমিন নক( সাড়া) দেই । রিপ্লে দিলোও অনেক মাস পরে , হঠাৎ ।

অতঃপর একদিন জানতে পারলাম
অবশেষে মুকুলের সেই আমাকে সন্দেহ করা মেয়েটি ছিল , ইনবক্স এর শারমিন।
ভুলভাল হিস্ট্রি তার সাথে কথাই হয়ে গেল।

আর আমি শিমুল।

লেখা মুহাম্মদ শুভ,
চরফ্যাশন সরকারি কলেজ
বিষয়শ্রেণী: গল্প
ব্লগটি ১১৯ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ০৮/০৯/২০১৯

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast