www.tarunyo.com

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

নিরবধি নিনাদ

মহীরুহ কাঁদে মুহুর্মুহুঃ
হলুদ পাতার শোকে।
বক্ষ গহীনে পাতা ধু-ধু মরু
মরুর বুকে জীর্ণ পাতারা
বৃষ্টির তরে ক্রন্দনরত,
মোর হৃদকম্পন ক্রমে বাড়ে।

চায়ের বাষ্প উড়ে উড়ে
গ্রীষ্মের মেঘের মতো
হঠাৎ কোথায় হারায়?
মাঝে একটুখানি চা বাকি
রয়ে যায় অভ্যাসের বশে,
কাপ পড়ে থাকে অবহেলায়।

সিঁড়ির পর সিঁড়ি কষেছি
কতো অংক খেরোখাতায়।
সুখের অংক খানি বোধ হয়
বড্ড সাবলীল, কঠিনে মত্ত
সামাজিক জীব সে হিসেব মেলাতে
তাই ক্রমাগত হিমশিম খায়।

বাগান ভরতি কাগজ ফুল
সন্ধ্যামালতি আর সর্বজয়া।
বুকের মধ্যে তবু গুলাব কণ্টক,
মায়ার আগুনে দগ্ধ ফুলেল হায়া।

রাত ফুরালেই দিনের অবসান
চোখে বুকে চৌপর ক্লান্তির আঘ্রাণ,
আমি হীন কোনো বিস্মৃতি প্রদোষে রেখো
আনমনে দু-চার ফোঁটা অশ্রুর নিশান।

শেষে আঁধারের ঠিকানায়
চিঠি লিখে তোমায় জানান দিতে চাই_
আমার আকাশে শঙ্খচিলেরা আর ভাসে না!
তবু রৌদ্র আর চন্দ্রের লীলায়
জোনাকি হয়েও যেনো একদিন
ঠিক তোমায় ছুঁতে পাই।

রচনাকাল: •|১৯আশ্বিন ১৪২৭|•
বিষয়শ্রেণী: কবিতা
ব্লগটি ১১৭ বার পঠিত হয়েছে।
প্রকাশের তারিখ: ০৪/১২/২০২০

মন্তব্য যোগ করুন

এই লেখার উপর আপনার মন্তব্য জানাতে নিচের ফরমটি ব্যবহার করুন।

Use the following form to leave your comment on this post.

মন্তব্যসমূহ

 
Quantcast